সোহমের পুলকারে সওয়ার অরিন্দম, প্রসেনজিৎ, প্রিয়াঙ্কারা

কলকাতা: শহরের এক স্কুলে পুলকার চালায় হরিনাথ পাত্র। তবে নিছক বাড়ি থেকে বাচ্চাদের স্কুলে নিয়ে যাওয়া আর ফেরত আনার মধ্যে সে তার কাজ সীমাবদ্ধ রাখে না। হরিনাথ গল্প বলতে ভালোবাসে। যাদু ও রূপকথার গল্পের মাধ্যমে খুদে যাত্রীদের জন্য হরিনাথ এক মায়াকল্পের জগত সৃষ্টি করে। হরিনাথ তখন হয়ে যায় হ্যারি। তার বাসের নাম আব্বুলিশ। সব বাচ্চারাই সেই বাসের সওয়ারি হতে চায়। বড় হয়ে ওঠার পর সেই দিনগুলোর কথা তাদের মনে পড়ে। সেই হারিয়ে যাওয়া এক টুকরো ছোটবেলা নিয়েই ‘কলকাতার হ্যারি’ পরিচালনা করেছেন রাজদীপ ঘোষ। এটাই তাঁর প্রথম ছবি। গতকাল শহরে এক প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেল ‘কলকাতার হ্যারি’র ট্রেলার। রাজদীপ ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন সোহম চক্রবর্তী, প্রিয়াঙ্কা সরকার, অরিন্দম গঙ্গোপাধ্যায়, প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় ও অন্যান্যরা।

আদ্যোপান্ত ছোটদের জন্য ছবি তৈরি করেছেন রাজদীপ। বর্তমানে যেখানে ছোটদের জন্য ছবি প্রায় হয় না, সেখানে ‘কলকাতার হ্যারি’ কি বড় ঝুঁকি নয়?

“দেখো, ঝুঁকি সব ছবিতেই আছে,” রেডিওবাংলানেট-কে বললেন রাজদীপ। “তবে এটা সত্যি যে ছোটদের ছবি কেউ করেন না। ছোটবেলা দাদু-ঠাকুমার মুখে আমরা নানারকম গল্প শুনতাম। সেই স্বপ্ন দেখা, কল্পনার জগতটা ফিরিয়ে আনতে চাইছিলাম। তবে এই ছবিটা করার সময় বুঝতে পারি, আজকের বাচ্চাদের জন্য গল্পটা তাদের মতো করে বলতে হবে। আমরা সেটাই করেছি।”

আরও পড়ুন: নেপথ্যে গাইলেন জলি, স্টেজে দাঁড়িয়ে ঠোঁট মেলালেন রাহুল দেব বর্মণ

মূলত ম্যাজিক রিয়্যালিজ়ম নির্ভর হলেও, সামাজিক বার্তাও থাকছে ‘কলকাতার হ্যারি’তে। স্কুলপড়ুয়াদের পছন্দ-অপছন্দ, বাড়ির বড়রা বা কোনও বৃদ্ধাশ্রমের আবাসিকরা কী চায়, ছবিতে এরকম নানা বিষয় রয়েছে।

‘কলকাতার হ্যারি’র নামভূমিকায় অভিনয় করেছেন সোহম। ছবির প্রধান পৃষ্ঠপোষকও তিনি। “শুধু ছোটরাই নয়, এটা তাদের অবিভাবকদেরও ছবি। বড়রা তো বটেই, স্বপ্ন দেখার অভ্যাসটা আজকাল অনেক শিশুও ভুলে গেছে। সেই অভ্যাসটাই আমরা ফিরিয়ে আনতে চাইছি,” বললেন সোহম।

আরও পড়ুন: সব কান্নার শব্দ হয় না, বেজে উঠল পটদীপ

একটি ছোট অথচ গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে রয়েছেন প্রসেনজিৎ। ট্রেলারে তাঁকে এক ঝলক দেখা গেল। প্রসেনজিৎ জানালেন, “আজ থেকে ৩৫ বছর আগে, সোহম যখন মাস্টার বিট্টু ছিল, তখন আমার বুকের ওপর উঠে হামাগুড়ি দিত। ওকে কাঁধে নিয়ে গোটা ফ্লোর ঘুরে বেড়াতাম আমি। তাই ও কোনও আবদার করলে আমার পক্ষে না বলা সম্ভব নয়। এছাড়া নতুন পরিচালকদের সঙ্গে কাজ করতে সবসময় ভালো লাগে। রাজদীপ অসম্ভব প্রতিভাবান। ও নিজে একজন সাংঘাতিক ভালো অভিনেতাও।”




প্রসেনজিৎ ছাড়াও ছবিতে একটি বিশেষ চরিত্রে রয়েছেন দীপঙ্কর দে। অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে রয়েছেন অরিন্দম, ঐশী গুহঠাকুরতা, লাবণী সরকার ও একঁঝাক খুদে শিল্পী। সঙ্গীত পরিচালনা করেছেন জিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। চিত্রগ্রাহক গোপী ভগৎ, সম্পাদনায় শুভজিৎ সিংহ। কাহিনী, চিত্রনাট্য, ও সংলাপ লিখেছেন রোহিত-সৌম্য।

করোনা অতিমরী ও লকডাউনের কারণে একাধিকবার বাধাপ্রাপ্ত হয়েছে ছবির কাজ।

৬ মে মুক্তি পেতে চলেছে ‘কলকাতার হ্যারি’।

 

 

Like
Like Love Haha Wow Sad Angry

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *