জমিয়ে মারপিট অনুভব, ইশার

RBN Web Desk: মফস্বল থেকে কেরিয়ারের টানে কলকাতায় এসে থাকার জায়গা নিয়ে সমস্যায় পড়ে নীল ও তিস্তা। শহুরে কর্মব্যস্ততার চাপে মফস্বলের মূল্যবোধকে জলাঞ্জলি দিয়ে শেষে তাদের একই ছাদের তলায় বাস করতে হয়। অচেনা কারোর সঙ্গে একই ফ্ল্যাটে থাকা এমনিই কঠিন, তার ওপর সে যদি বিপরীত লিঙ্গের হয় তাহলে তো সাড়ে সর্বনাশ! বাড়ির লোকজন বা সমাজ কোন চোখে দেখবে তাদের? নীল আর তিস্তা কি শুধুই বন্ধু নাকি আরো বেশি কিছু?

লিভ-ইন সম্পর্কের বাস্তবতা নিয়ে অঞ্জন কাঞ্জিলাল তৈরি করেছেন ‘সহবাসে’। নীল ও তিস্তার ভূমিকায় অভিনয় করেছেন অনুভব কাঞ্জিলাল ও ইশা সাহা। অন্যান্য চরিত্রে রয়েছেন রাহুল বন্দ্যোপাধ্যায়, সায়নী ঘোষ, শুভাশিস মুখোপাধ্যায়, বিশ্বজিৎ চক্রবর্তী, তুলিকা সাহা ও দেবলীনা দত্ত।

আরও পড়ুন: দুই বাংলার আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস স্মরণ

ইশা এর আগে বেশ কিছু ছবিতে অভিনয় করে ফেললেও অনুভবের সঙ্গে এটাই তাঁর প্রথম কাজ। তাঁর অভিনীত চরিত্রের ডাকনাম টুসি। নীলকে প্রথমে না চিনলেও পরে একসঙ্গে থাকতে গিয়ে দুজনের মধ্যে একটা সম্পর্ক তৈরি হয়।

“টুসি একেবারেই শান্ত নয়,” সম্প্রতি ‘সহবাসে’র ট্রেলার মুক্তির অনুষ্ঠানে রেডিওবাংলানেট-কে বললেন ইশা। “সে খুব ডানপিটে আর ঠোঁটকাটা মেয়ে। তবে কিছু ক্ষেত্রে সে যথেষ্ট পরিণতমনস্কও। আমি ইন্ডাস্ট্রিতে অনুভবের আগে এসেছি তাই ‘আমি তোর সিনিয়র’ বলে সারাক্ষণ ওকে ধমকাই। ও যদিও সেগুলো মেনে নেয়।”




কেমন ছিল ‘সহবাসে’ অভিনয় করার অভিজ্ঞতা? “চিত্রনাট্যে প্রচুর মারামারি ছিল। সেগুলো অন-স্ক্রিন খুব জমিয়ে করেছি আমরা। এক জায়গায় ওকে আমাকে চড় মারতে হতো। কিছুতেই সিনটা ওকে হচ্ছিল না। অঞ্জনদা বলল ‘মেরেই দে’। অনুভব পরে বেশ রেগে গিয়েছিল। আমি বললাম ‘বেশ করেছি মেরেছি’,” হাসতে-হাসতে বললেন ইশা।

এতদিন যে ধরণের চরিত্রে দর্শক ইশাকে দেখে এসেছেন, টুসির ভূমিকায় তাঁর লুক একেবারেই আলাদা হবে বলে জানালেন ইশা। 

আরও পড়ুন: আবারও বাংলায় জনপ্রিয় হিন্দি মেগাধারাবাহিক

ব্যক্তিগভাবে লিভ-ইনে বিশ্বাসী নন অনুভব। তিনি মনে করেন লিভ-ইন আসলে এক ধরণের পরীক্ষা যা একটা সম্পর্কের পক্ষে খুব অপমানজনক। “একে অপরের সম্পর্কে নিশ্চিত হলে বিয়ে করাই উচিত,” বললেন তিনি। “তবে এখন নানারকম পরিস্থিতিতে, কসমোপলিটান শহরে ঘরভাড়া ভাগ করে নেওয়ার জন্য অনেককেই একসঙ্গে থাকতে হয়। সেটার মানে প্রেম নাও হতে পারে। বন্ধুত্বও হতে পারে। তবে দুজন মানুষ বেশিদিন অচেনা হয়ে থাকতে পারে না।”


ইশার সঙ্গে কাজের অভিজ্ঞতা খুবই ভালো বলে জানালেন অনুভব। তবে প্রথমবার এমন একটা চরিত্রে কাজ করতে গিয়ে অন্য এক সমস্যা হয়েছিল তাঁর। “এরকম একটা চরিত্রের ক্ষেত্রে পরিচালক ও অভিনেতা একে অপরকে একটু কম চিনলেই ভালো হয়। এখানে পরিচালক আমার বাবা। তাই প্রথমটায় কাজ করতে বেশ অস্বস্তি লাগত। পরে অবশ্য সময়ের সঙ্গে সেটা কেটেও গেছে,” জানালেন অনুভব। 

১২ মার্চ মুক্তি পেতে চলেছে ‘সহবাসে’।

Amazon Obhijaan



Like
Like Love Haha Wow Sad Angry

Swati

Editor of a popular Bengali web-magazine. Writer, travel freak, nature addict, music lover, foody, crazy about hill stations and a dancer by passion. Burns the midnight oil to pen her prose. Also a poetry enthusiast.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *